দিরাই পৌর কাউন্সিলরকে ‘ব্ল্যাকমেইল’, আটক ২

দিরাই প্রতিনিধি :: ফেসবুকে সবিহা খাতুন নামক আইডির সাথে বন্ধুত্ব অতপর মেসেঞ্জারে আলাপচারিতা। এক সময় এডিট করা অশালীন ভিডিও দেখিয়ে সুনামগঞ্জের দিরাই পৌর কাউন্সিলর  এবিএম মাসুম প্রদীপ কে ব্লাকমেইল করে ইন্টারনেটে ছাড়ার হুমকি দিয়ে ৭০ হাজার টাকা দাবীর অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে সুনামগঞ্জ ডিবি পুলিশ।

বুধবার বেলা ৪ টার দিকে জেলা ডিবি পুলিশের একটি দল ওৎ পেতে থেকে দাবিকৃত টাকা উত্তোলনের সময় সুনামগঞ্জ পৌর মার্কেটের একটি বিকাশ’র দোকান থেকে তাদেরকে আটক করে। আটককৃতরা হলো দিরাই পৌর সদরের চন্ডিপুর গ্রামের হাজী সাইফুল ইসলামের ছেলে হারুন উর রশিদ (২০) ও সুনামগঞ্জ পৌর সদরের মরাটিলা শান্তিবাগ এলাকার নুর মিয়ার পুত্র সালমান হক রানা (১৯)।

জানা যায়, সাবিহা খাতুন নামক একটি ফেসবুক  আইডি থেকে ম্যাসেঞ্জারে কল দিয়ে কাউন্সিলর এবিএম মাসুম প্রদীপ কে ৭০ হাজার টাকা চাদা দাবি করে। দাবিকৃত টাকা না দিলে তার  অশ্লীল ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। 

এব্যাপারে কাউন্সিলর প্রদীপ বাদী হয়ে দিরাই থানায় একটি সাধারণ ডাইরী দায়ের করেন। ডাইরী নং- ৩১৬, তারিখ- ৮-১-১৯ ইং। এরপর ৯ জানুয়ারি তাদের দাবিকৃত টাকা বিকাশ নাম্বারে প্রেরণ করা হবে বলে তাদেরকে জানালে তারা টাকা উত্তোলনের জন্য ঐ বিকাশের দোকানে যায়। বিকাশের ঐ নাম্বারটি ট্রাকিং করে জেলা ডিবি পুলিশের একটিদল আগ থেকেই সেখানে ওৎ পেতে থাকে এবং টাকা উত্তোলনের সময় তাদেরকে হাতেনাতে আটক করে।

কাউন্সিলর প্রদীপ জানান, সাবিহা খাতুন নামে আমার এক ফেসবুক ফ্রেন্ড কিছুদিন যাবত ফেসবুকের মেসেঞ্জারে ভিডিও কল করে কথাবার্তা বলে আসছে। গত তিনদিন পূর্বে উল্লিখিত সাবিহা খাতুন আমাকে মেসেঞ্জারে কল দিয়ে বলে যে, আমার অশালীন ভিডিও তার কাছে রয়েছে। সে আমার নিকট ৭০ হাজার টাকা দাবী করে। অন্যথায় ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবার হুমকি দেয়। আমি এবিষয়ে সাধারণ ডাইরী করি। আমাকে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য একটি দুষ্টচক্রের আমার বিরুদ্ধে ধারাবাহিক ষরযন্ত্রের অংশ এটি। এর আগেও একইভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে নামে বেনামে বিভিন্ন ফেক আইডি থেকে বিষোদাগার করে আসছে। এটিও তাদেরই কাজ।

খবরটি পড়া হয়েছে :12বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *