বদলে যাচ্ছে টেস্ট ক্রিকেটের ১৪২ বছরের ইতিহাস

অ্যাশেজ সিরিজ থেকে খেলোয়াড়দের জার্সিতে দেখা যেতে পারে তাদের নাম ও জার্সি নম্বর।

টেস্ট ক্রিকেটে ১৪২ বছরের ইতিহাসে যা কখনো দেখা যায়নি, আগামী আগস্ট থেকে তা দেখা যেতে পারে। খেলোয়াড়দের সাদা জার্সির পেছনে থাকবে নাম ও নম্বর।

এমন পরিবর্তনের প্রস্তাব আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ থেকেই আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, এ বছর অ্যাশেজ সিরিজে খেলোয়াড়দের নাম ও নম্বর সংবলিত জার্সি তৈরির কাজে হাত দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অপারেশনস বিভাগ।

১৮৭৭ সালে টেস্ট ক্রিকেট শুরুর পর থেকে খেলোয়াড়দের জার্সিতে তাদের নাম ও জার্সি নম্বর কখনো দেখা যায়নি। টেস্ট ক্রিকেটকে আরও জনপ্রিয় করতে সম্প্রতি বেশ কিছু প্রস্তাব দিয়েছে খেলাটির আইন প্রণেতা মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি)। এর মধ্যে রয়েছে ফ্রি হিট, এক ব্র্যান্ডের (যেমন কুকাবুরা বা ডিউক বা এসজি) বল দিয়ে সব ম্যাচ খেলা, সময় নষ্ট না করতে টাইমার চালুর মতো কিছু প্রস্তাব।

জার্সি নম্বর ও খেলোয়াড়দের নাম জুড়ে দেওয়ার কথাও এর সঙ্গে ভাবা হয়েছে। মাঠে খেলোয়াড়দের আরও সহজে চিনতেই এই প্রস্তাবনা।

আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে অ্যাশেজ সিরিজ। এবারের এই অ্যাশেজ সিরিজ দিয়ে খেলোয়াড়দের গায়ে প্রথমবারের মতো দেখা যেতে পারে তাদের নাম ও নম্বর সংবলিত জার্সি— আর এর মধ্য দিয়ে ভেঙে ফেলা হতে পারে টেস্ট ক্রিকেটের এত দিনের রীতি।

জার্সিতে নাম ও নম্বর জুড়ে দেওয়ার প্রস্তাবটি ১ আগস্ট থেকে চালু করার প্রস্তাব করেছে আইসিসি। অ্যাশেজ সিরিজ এবারই প্রথমবারের মতো বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অধীনে মাঠে গড়াবে। টেস্ট খেলুড়ে নয়টি দল দুই বছর মেয়াদে পয়েন্টের ভিত্তিতে একে-অপরের সঙ্গে খেলবে, এরপর অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল।

জার্সিতে নাম ও নম্বরের নিয়মটি ১ আগস্ট থেকে চালু হলে এই নিয়মের অধীনে মাঠে নামা প্রথম দুটি দল হবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। এর আগে ২০০১ সালে টেস্টের টুপিতে নম্বর জুড়ে দেওয়ার প্রথা চালু করে ইংল্যান্ড। এরপর বাকি দেশগুলো তা অনুসরণ করে।

খবরটি পড়া হয়েছে :7বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *