পপির আমার পা ধরে মাফ চাইবে, সেটা আমি টিভিতে দেখাব: মাহফুজ

বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পপির ওপর ক্ষেপেছেন বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। তিনি এতটাই ক্ষেপেছেন যে পপিকে তাঁর পা ধরে মাফ চাওয়ার কথা বলেছেন। তিনি বলেন, পপিকে আমি তখনই মাফ করব যখন সে পা ধরে মাফ চাইবে এবং সেটা আমি টিভিতে দেখাব।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে এটিএন বাংলার কার্যালয়ে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় ‘সময় ও অসময়ের গল্প’ সিরিজের নাটকের সংবাদ সম্মেলনে পপি সম্পর্কে হঠাৎ এসব কথা বলেন মাহফুজুর রহমান। সেই ভিডিও এখন অন্তর্জালে ভাইরাল।

ড. মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘পপি একটা ছবি দিয়েছিল, তাঁকে মেকআপ করে দিচ্ছি। ওই শয়তান মেয়ে এটা করেছিল। ওর এই জিনিসটা করা খুবই জঘন্যতম কাজ হইছে। সে লিখছে এখন থেকে পপির নতুন মেকআপম্যান মাহফুজুর রহমান। কত জঘন্য কাজ করছে। তারপর থেকে পপিকে এই এরিয়ার মধ্যে আমি ঢুকতে দেই না।’

মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘সে এমনও বলছে চেয়ারম্যান স্যারের পা ধরে আমি মাফ চাইব। পপির মতো একটা শিল্পী আমার পা ধরে মাফ চাইবে। আমি বলেছি, তখনই মাফ করব যখন পা ধরে মাফ চাওয়ার ভিডিও টিভিতে দেখাব। যদি সে এটা দেখায় তাহলে আমি মাফ করব, না হলে করব না। দর্শক দেখুক, ভুলের জন্য পপি মাহফুজুর রহমানের পা ধরে মাফ চাচ্ছে। পপি হারামজাদী। পরপর ৫টা ছবিতে আমি তাঁকে নিয়েছি। এই হচ্ছে ঘটনা।’

এ বিষয়ে পপি বলেন, ‘মাহফুজুর রহমান স্যারের শুভ বুদ্ধির উদয় হোক। অনেক বড় মাপের মানুষ তিনি। তবে আমি বলব, নারীর প্রতি সম্মান রেখে কথা বলা উচিত। শিল্পীদের প্রতি সম্মান দেওয়া দরকার।’

মেকআপ করা প্রসঙ্গে পপি বলেন, ‘আমি সিনেমার শুটিংয়ের জন্য এফডিসিতে মেকআপ করছিলাম। সেই সেটে মাহফুজুর রহমান স্যার এসেছিলেন। তিনি যখন দেখেন আমার মেকআপম্যান ঠিকমতো মেকআপ করতে পারছিল না, তখন তিনি নিজেই আমার মেকআপ ঠিক করে দেন। সেই সময় পরিবেশটা হাস্যোজ্জ্বল ছিল। অনেক সাংবাদিকও ছিলেন। সবাই সেই ছবি তুলে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করেছিলেন। আমি আজ পর্যন্ত কোনো সাংবাদিককে ফোন করে বলিনি আমার সংবাদ করতে, তাঁরা নিজেরাই ফোন করে আমার কাছ থেকে সংবাদ সংগ্রহ করেন।  আমি জানি না, আমার দোষটা কোথায়? মাহফুজুর রহমান স্যার কেন এমন করে বললেন সেটাও জানি না। হয়তো কারো মাধ্যমে তিনি ভুল তথ্য পেয়েছেন।’

মাহফুজুর রহমানের কাছে মাফ চাননি বলেও জানান পপি।

খবরটি পড়া হয়েছে :16বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *