ভাইয়ের স্ত্রীর সঙ্গে যেখানে অন্য ভাইয়ের ‘যৌন সম্পর্ক’ রেওয়াজ!

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতার বালিগঞ্জ পার্কে এক অভিজাত স্বর্ণ ব্যবসায়ীর পরিবারে বিকৃত লালসার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, পারিবারিক প্রথার নামে এখানে চলত ‘স্ত্রী অদল-বদল’ অর্থাৎ এক ভাইয়ের স্ত্রীকে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে হবে অন্য ভাইয়ের সঙ্গেও। ভয়ানক সেই ঘটনার অভিযোগ তুলেছেন অভিজাত সেন পারিবারের ছোট ছেলের স্ত্রী। 

জি নিউজের খবর, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন ওই পুত্রবধূ। তাঁর অভিযোগে উঠে আসে, কীভাবে নিজের শ্বশুরবাড়িতে বিকৃত লালসা, যৌন নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে তাঁকে। অভিযোগ, পারিবারিক প্রথার নামে ওই পরিবারের চলত ‘স্ত্রী অদল-বদল’ অর্থাৎ এক ভাইয়ের স্ত্রী ছিলেন অন্য ভাইয়েরও ‘ভোগ্য’। নির্যাতিতাকে বিয়ের কয়েক মাস পর থেকেই চাপ দেওয়া হয়েছিল ভাসুর নীলাঞ্জনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে। তিনি তাতে রাজি না হওয়ায় অত্যাচার শুরু হয়। অভিযোগ, পরে স্বামীর মদতেই ভাসুর নীলাঞ্জন ধর্ষণ করতে থাকেন তাঁকে। বৃহস্পতিবার রাতেই অভিযুক্ত স্বামী সুরঞ্জন ও  নীলাঞ্জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

এদিকে, ছেলের স্ত্রীর বিরুদ্ধেই পাল্টা অভিযোগ তুলছেন শ্বশুর। তার অভিযোগ, পুত্রবধূর চরিত্রেই সমস্যা রয়েছে। বেশিরভাগ রাতই বাড়ির বাইরে কাটান তিনি। অন্যান্য পুরুষদের সঙ্গে রাত কাটান। তা নিয়ে পরিবারে অশান্তি হত। সম্প্রতি অভিযুক্ত ছোট ছেলে সুরঞ্জন সেনের স্ত্রীকে এক ঘরে রাখা হয়েছিল বলেও স্বীকার করে নেন শ্বশুর। আর সেটাই ভাবাচ্ছে পুলিশকে। 

খবরটি পড়া হয়েছে :12বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *