ব্যাংকের চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তাদের চাকরির বয়সসীমায় পরিবর্তন

ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের চাকরির বয়সসীমায় পরিবর্তন আনা হয়েছে। বিশেষ করে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ ব্যাপক বেড়ে যাওয়ায় এ ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে ব্যাংকগুলো ৬৫ বছর বয়স পার হওয়া ব্যক্তিকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিতে পারবে না।

বিশেষ প্রয়োজনে শুধু পরামর্শক ও উপদেষ্টা পদে বয়সের এ সীমা শিথিলযোগ্য। অন্যদিকে বেসরকারি ব্যাংকগুলোকে সরকারি ব্যাংকের সঙ্গে মিল রেখে অবসরের নীতিমালা করতে হবে। এছাড়া শিক্ষাজীবনের কোনো পর্যায়ে তৃতীয় শ্রেণী পাওয়া ব্যক্তিকে ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সোমবার এ সংক্রান্ত আলাদা দুটি সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদ বরাবর পাঠানো হয়েছে।

চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ সংক্রান্ত সার্কুলারে বলা হয়, এমডি পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের ক্ষেত্রে ৬৫ বছরের বয়সসীমা নির্ধারিত থাকলেও অন্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীর ক্ষেত্রে তা নেই। ফলে ৬৫ বছর পার হওয়ার পরও চুক্তিভিত্তিক বিভিন্ন পদে অনেকে বহাল থাকেন। ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী ও অধস্তন অন্য চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীর মধ্যে বয়সসীমার এ অসমতা কাক্সিক্ষত নয়।

ব্যাংক খাতে শৃঙ্খলা এবং ব্যবস্থাপনায় গতি আনার লক্ষ্যে চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা, কর্মচারীদের নিযুক্ত পদে বহাল থাকার একটি বয়সসীমা নির্ধারণ করা কাম্য। এ পরিস্থিতিতে এখন থেকে কোনো ব্যক্তির বয়স ৬৫ বছর পূর্ণ হলে তিনি ব্যাংকের কোনো পদে চুক্তিভিত্তিতে নিয়োজিত বা অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না। বর্তমানে চুক্তিভিত্তিক নিয়োজিত আছেন এমন কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিদ্যমান চুক্তির মেয়াদ এক বছর বা তার কম বাকি থাকলে তা পূর্ণ করা যাবে। এছাড়া বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক চাইলে পরামর্শক ও উপদেষ্টা পদে ৬৫ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিকে চুক্তিভিত্তিক বহাল বা নিয়োগ দিতে পারবে।

সরকারি চাকরিতে অবসরে যাওয়ার বয়স ৫৯ বছর। বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে প্রচলিত বিধান ও প্রথা অনুযায়ী সরকারি বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকের নিয়মিত কর্মীরা সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য প্রযোজ্য বিধি-বিধান অনুযায়ী এবং বেসরকারি ব্যাংকের নিয়মিত কর্মীরা নিজ পর্ষদ থেকে নির্ধারিত বয়সসীমা অনুযায়ী অবসরে যান। এখন থেকে সরকারি বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকের অবসর গ্রহণের বয়সসীমার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বেসরকারি ব্যাংকের অবসর গ্রহণের বয়স সংক্রান্ত নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে। পরিচালনা পর্ষদকে এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

তৃতীয় শ্রেণী থাকলে এমডি হতে পারবেন না : এমডি নিয়োগে যোগ্যতার ক্ষেত্রে আগের নির্দেশনার সংশোধনী এনে আরেকটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এমডি পদে নিয়োগ পেতে কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ন্যূনতম স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী হতে হবে। প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিযুক্তি বা পুনঃনিযুক্তির ক্ষেত্রে অর্থনীতি, হিসাববিজ্ঞান, ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং, ব্যবস্থাপনা বা ব্যবসা প্রশাসনে উচ্চতর প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতে হবে।

শিক্ষাজীবনের কোনো পর্যায়ে তৃতীয় শ্রেণী বা বিভাগ গ্রহণযোগ্য হবে না। আর গ্রেডিং পদ্ধতিতে প্রকাশিত ফলের ক্ষেত্রে এসএসসি বা সমমান ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় জিপিএ-৩ এর কম এবং অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দেয়া সিজিপিএ’র ক্ষেত্রে ৪ পয়েন্ট স্কেলে ২ দশমিক ৫০-এর কম ও ৫ পয়েন্ট স্কেলের ক্ষেত্রে ৩-এর কম হলে তাকে এমডি পদে নিয়োগ করা যাবে না।

খবরটি পড়া হয়েছে :22বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *