যুদ্ধ ছাড়াই কাশ্মির সমস্যার সমাধান আছে ভারত-পাকিস্তানের

যুদ্ধ ছাড়াই কাশ্মির সমস্যার তিন থেকে চারটি সমাধান ভারত ও পাকিস্তানের কাছে আছে। ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ির সঙ্গে একটি পুরনো আলোচনার সূত্র ধরে এ কথা জানালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

একই সঙ্গে তার দাবি, অটল বিহারি বাজপেয়ি তাকে বলেছিলেন, ২০০৪ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি না হারলে কাশ্মির সমস্যার সমাধান হয়ে যেত। মঙ্গলবার ইসলামাবাদে টিভি সাংবাদিকদের সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে এ কথা বলেন ইমরান।

ইমরানের মন্তব্য, ‘অটল বিহারি বাজপেয়ি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন কাশ্মির সমস্যা সমাধানের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিল দুই দেশ।’ যুদ্ধ নয়, আলোচনার ভিত্তিতেই কাশ্মির সমস্যার সমাধান আছে বলে তাকে জানিয়েছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ি। বাজপেয়ির সঙ্গে তার সেই আলোচনার সময় ভারতের প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী নটবর সিংহ-ও উপস্থিত বলে জানিয়েছেন ইমরান।

কিন্তু কী ছিল সেই সমাধানের পথ, তা খোলসা করে জানাননি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। সাংবাদিকরা এই নিয়ে তাকে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, ‘সেই কথা বলার সময় এখনও আসেনি।’

ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের সম্ভাবনার বিষয়টিও উড়িয়ে দিয়েছেন ইমরান। দু’টি পরমাণু অস্ত্রধর দেশ যুদ্ধে নামলে যে ক্ষয়ক্ষতি হবে, সেই ভয়াবহতার কথা মাথায় রেখেই ভারত এবং পাকিস্তান যুদ্ধ করবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

পাকিস্তান বার বার আলোচনার আহ্বান দিলেও ভারত কেন সেই ডাকে সাড়া দিচ্ছে না, এই নিয়েও মুখ খুলেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। তার দাবি, ‘ ২০১৯ লোকসভা নির্বানের কথা মাথায় রেখেই আলোচনায় বসতে আগ্রহ দেখাচ্ছে না নয়াদিল্লি।’

পাকিস্তান সরকার ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে বিভিন্ন সময় উৎসাহ দেখালেও পাকিস্তানি সেনার আপত্তির কারণে সেই শান্তি প্রক্রিয়া অনেক সময়ই ভেস্তে গেছে।

সেই প্রসঙ্গ এনে ইমরান বলেন, ‘পাকিস্তানি সেনা এবং তিনি একই জায়গায় আছেন। আমার সমস্ত সিদ্ধান্তে সেনাবাহিনীর সমর্থন আছে।’

পাকিস্তানে বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার অভিযোগ এনে সমস্ত রকম আলোচনার রাস্তা বন্ধ করেছে ভারত। সন্ত্রাস এবং আলোচনা, এক সঙ্গে চলতে পারে না, ইসলামাবাদকে এই কথা বার বারই জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি।

খবরটি পড়া হয়েছে :10বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *