ফিফা বর্ষসেরা লুকা মদ্রিচ

ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতেছেন ক্রোয়েশিয়া ও রিয়াল মাদ্রিদের মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ। এটা মদ্রিচের প্রথমবারের মত বর্ষসেরার পুরস্কার অর্জন। টানা দুবারের বিজয়ী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও লিভারপুলের হয়ে অভিষেক মৌসুমে আলো ছড়ানো মোহাম্মদ সালাহকে হারিয়ে ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ নির্বাচিত হয়েছেন ক্রোয়াট এই মিডফিল্ডার।

সোমবার লন্ডনে ‘দ্য বেস্ট ফিফা ফুটবল অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে এ বছরের সেরা ফুটবলার হিসেবে মদ্রিচের নাম ঘোষণা করা হয়। এর মাধ্যমে ১০ বছর পর লিওনেল মেসি ও রোনালদোর বাইরে অন্য কেউ বর্ষসেরার কোনো পুরস্কার জিতল। গত এক দশকে ফিফার বর্ষসেরা অথবা ব্যালন ডি’অর- সব জেতেন দুই তারকার যে কোনো একজন।

গত মাসের শেষ দিকে রোনালদো ও সালাহকে হারিয়েই উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হন মদ্রিচ। এরপর তার ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার বর্ষসেরা খেলোয়াড় জিতলেন মদ্রিচ।

ইতিহাসের প্রথম ক্লাব হিসেবে রিয়ালের টানা তৃতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল মদ্রিচের। মাদ্রিদের ক্লাবটির হয়ে গত মৌসুমে উয়েফা সুপার কাপ, স্প্যানিশ সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপ শিরোপাও জিতেন তিনি। আর রাশিয়া বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলতে বড় অবদান রাখেন মদ্রিচ। টুর্নামেন্ট জুড়ে ধারাবাহিকভাবে দারুণ খেলেন তিনি, দুটি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করান ১টি। জিতেন আসরের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ‘গোল্ডেন বল’।

জাতীয় দলের কোচ, অধিনায়ক, বিশ্বজুড়ে ফিফা নির্বাচিত সাংবাদিক ও ফিফা ডটকমে নিবন্ধন করা ফুটবলপ্রেমীদের ভোটে বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচন করা হয়।

পুরুষ দলের সেরা কোচের পুরস্কারটা গেছে দিদিয়ের দেশমের কাছে। ফ্রান্সকে ২০ বছর পর আরেকটি বিশ্বকাপ জেতানোর পুরস্কার পেয়েছেন অধিনায়ক হিসেবেও বিশ্বকাপ জেতা এই ফরাসি। বর্ষসেরা গোল, পুসকাস অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন সালাহ।

বর্ষসেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার পেয়েছেন রাশিয়া বিশ্বকাপে দুর্দান্ত খেলা বেলজিয়ামের থিবো কোর্তোয়া। আগস্টে চেলসি ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিয়েছেন ২৬ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়।

১৯৯১ সাল থেকেই বর্ষসেরা ফুটবলার পুরস্কার দিয়ে আসছে ফিফা। ২০১০ সাল থেকে ফ্রান্স ফুটবলের ব্যালন ডি’অরের সঙ্গে মিলে একীভূত হয়ে সেটির নাম হয়ে যায় ফিফা-ব্যালন ডি’অর। ছয় বছর একসঙ্গে পথচলার পর ২০১৬ সালে আবার আলাদা হয়ে যায় ফিফা আর ফ্রান্স ফুটবল। কিছু পরিবর্তন এনে ব্যালন ডি’অর দেওয়া হচ্ছে আগের মতোই। আঙ্গিকে বেশ পরিবর্তন এনে ফিফার পুরস্কারটা যাত্রা শুরু করেছে ‘দ্য বেস্ট’ নামে নতুনভাবে। প্রথম দুইবারই সেরা হয়েছেন রোনালদো।

ফিফার বর্ষসেরা একাদশ: দাভিদ দে হেয়া (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড/স্পেন), দানি আলভেস (পিএসজি/ব্রাজিল), রাফায়েল ভারানে (রিয়াল মাদ্রিদ/ফ্রান্স), সের্হিও রামোস (রিয়াল মাদ্রিদ/স্পেন), মার্সেলো (রিয়াল মাদ্রিদ/ব্রাজিল), নগোলো কঁতে (চেলসি/ফ্রান্স), লুকা মদ্রিচ (রিয়াল মাদ্রিদ/ক্রোয়েশিয়া), এদেন আজার (চেলসি/বেলজিয়াম), কিলিয়ান এমবাপে (পিএসজি/ফ্রান্স), লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা/আর্জেন্টিনা), ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (জুভেন্টাস/পর্তুগাল)।

খবরটি পড়া হয়েছে :8বার!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *